মঙ্গলবার l ৭ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ l ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ l৩রা জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি
যমুনার বুকে জেগে উঠেছে অসংখ্য চর ও ডুবোচর - Daily Ajker Sirajganj

যমুনার বুকে জেগে উঠেছে অসংখ্য চর ও ডুবোচর

নৌযান চলাচল বিঘ্ন

বিশেষ প্রতিবেদক :
সিরাজগঞ্জের যমুনা নদীর বুকে অসংখ্য চর ও ডুবোচর জেগে উঠেছে। এ কারণে যমুনার চ্যানেলে নৌযান চলাচলে এখন চরম বিঘ্ন ঘটছে। যমুনায় নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, প্রতিবছরের ন্যায় এবারও শুষ্ক মৌসূমে সিরাজগঞ্জের কাছে যমুনা নদীর নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় পানি প্রবাহ কমে গেছে। এতে যমুনার বুকে অসংখ্য চর ও ডুবোচর জেগে উঠেছে। এসব চর জুড়ে এখন অতিথি বিভিন্ন প্রজাতির পাখি ঘুরে বেড়াচ্ছে। উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের সাথে যমুনা নদীতে নেমে আসে বালু। এ কারণে বর্ষা মৌসূমে যমুনার পানি ফুলে ফেপে উঠে এবং যমুনার উভয়পাড়ে তীব্র ভাঙনের সৃষ্টি হয়। এ ভাঙ্গনে ঘর-বাড়ি, গাছপালাসহ আবাদি জমি নদীগর্ভে চলে যায়।

এছাড়া বর্তমানে যমুনার পানি প্রবাহ কমে যাওয়ায় জেলেরা এখন অসহায় এবং অনেক জেলে এ পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় চলে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই যমুনা নদীর বিভিন্ন চ্যানেলে পণ্যবাহী নৌকা, জাহাজ চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। বর্ষা মৌসুমে দুর-দুরান্ত থেকে নৌ-পথে তাঁত সমৃদ্ধ এলাকা সিরাজগঞ্জ, শাহজাদপুর, বেলকুচি, ও এনায়েতপুরে ব্যবসায়ীরা আসতো। যমুনায় চর জেগে ওঠায় এ ব্যবসা এখন তেমন চোখে পড়ে না। বিশেষ করে জামালপুর, ভুয়াপুর ও চৌহালী থেকে জেলা সদরে পৌঁছতে শ্যালো নৌকায় ২/৩ ঘণ্টার বদলে এখন প্রায় ৫/৬ ঘণ্টা সময় বেশি লাগে। জাহাজ চলাচল একেবারে বন্ধ হয়ে গেলেও শ্যালো নৌকা চলছে প্রায় ৪ কিলোমিটার ঘুরে। অনেক স্থানে নৌপথ বন্ধের কারণে চর ও ডুবোচর দিয়ে মানুষ এখন পায়ে হেঁটেও চলাচল করছে।

সিরাজগঞ্জ, চৌহালী ও এনায়েতপুর নৌকা ঘাটের মাঝিসহ অনেকে বলছেন, কয়েক সপ্তাহ ধরে যমুনা নদীর পানি কমতে থাকায় অস্যখ্য চর ও ডুবোচর এখন জেগে উঠেছে। এতে নৌ চলাচলে চরম বিঘ্নের সৃষ্টি হচ্ছে। কয়েক সপ্তাহ আগে নৌকাযোগে সরাসরি যাওয়া গেলেও এখন বঙ্গবন্ধু সেতু ঘুরে যেতে হয় অনেক চরাঞ্চলে।

জরুরীভাবে ড্রেজিং করে নৌ পথ তৈরি করা না হলে এ চ্যানেলও বন্ধ হয়ে যাবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কর্মকর্তা বলছেন, যমুনা নদীতে অসংখ্য চর ও ডুবোচর জেগে ওঠায় বর্ষার শুরুতেই নদী ভাঙন দেখা দেয়। এ মৌসুমে নৌপথের যাত্রীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে নদী পথে সিরাজগঞ্জ-চৌহালী যাতায়াতে যাত্রীদের বেশি ভোগান্তির শিকার হয়। শুষ্ক মৌসুমের আগে নদীতে ড্রেজিং করে ভাঙনরোধ ও নাব্যতা সংকট সমাধানের পদক্ষেপ নেয়া যেতে পারে বলে তারা উল্লেখ করেন।

 

আজকের সিরাজগঞ্জ / মুক্তা পারভীন

 

© All rights reserved © 2017 Dailyajkersirajgonj.com

Desing & Developed BY লিমন কবির