শনিবার l ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ l ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ l১৯শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি
তাড়াশে হয়ে গেল গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য বাউথ উৎসব - Daily Ajker Sirajganj
শিরোনাম:
দুই এমপি করোনায় আক্রান্ত শাহজাদপুরের বাঘাবাড়িতে একটি গ্রাম পুরুষ শূন্য সিরাজগঞ্জে পুরোহিত ও সেবাইতদের দক্ষতা বৃদ্ধি বিষয়ক কর্মশালার উদ্বোধন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় আগামি ৬ ফেব্রুয়ারি পযর্ন্ত বন্ধ ফেরদৌস ওয়াহিদ রুশো’র মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ রায়গঞ্জের তীব্র শীতে ডিমের দোকানে উপচে পড়া ভিড় রায়গঞ্জে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের বিশেষ কার্যক্রম উদ্বোধন বেলকুচিতে অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন কাউন্সিলর আলম প্রামাণিক রায়গঞ্জে সাংবাদিক পুত্র সুব্রত কুমার পেলেন চীনের এক্সিলেন্ট স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড বেলকুচিতে ডেসওয়া ট্রাস্টের কমিটি গঠন

তাড়াশে হয়ে গেল গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য বাউথ উৎসব

সোহেল রানা সোহাগ :
চলনবিল অধ্যুষিত সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার কুন্দইল খালে উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে হয়ে গেল গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য বাউথ উৎসব। বংশ পরম্পরায় এই উৎসবে চলনবিলের, তাড়াশ, গুরুদাসপুর, সিংড়া, ভাঙ্গুড়াসহ দূর দূরান্ত থেকে শত-শত সৌখিন মাছ শিকারীরা অংশ নেয়। তবে এবার মাছ কিছুটা কম ধরা পড়লেও উৎসাহের যেন কোন কমতিই ছিল না। উত্তরাঞ্চলের মৎস্য ভান্ডার খ্যাত চলনবিলের মানুষের প্রাচীন সংস্কৃতির অংশ বাউথ উৎসব। সরেজমিনে, শুক্রবার দুপুরে চলনবিলের তাড়াশ উপজেলার কুন্দইল বিলে গিয়ে দেখা যায়, বাঁশের তৈরি পলো নিয়ে এ বাউথ উৎসবে মেতেছেন এলাকার শতাধিক যুবক, বৃদ্ধসহ নানা বয়সের সৌখিন মাছ শিকারীরা। যে সকলে এক সাথে লম্বা লাইন হয়ে বিলের পানিতে মাছ শিকারে নেমেছেন। এক সঙ্গে কন্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে আনন্দ করতে বিভিন্ন ধরনের জারি গান গেয়ে গানের তালে তালে মাছ শিকার করছেন।

এখানে বোয়াল শৈল, বোয়াল, রুই, কাতল সহ বড় মাছ পাচ্ছেন অনেকে কি যে এক অদভুত আনন্দ যা নিজ চখে না দেখলে বিশ্বাসই হবে না। এ দিন কেউ বা আবার মাছ শিকার করতে পারছে না । তাতে যেন তাদের একটুকু দুঃখ্য নেই। আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়াই যে এ উৎসবের মুল উদ্দেশ্য। বাউথ উৎসবে মাছ শিকার করতে আসা আব্দুর আলিম, রফিকুল, আছের আলীসহ বেশ কয়েক জন জানান, শুস্ক মৌসুম এলেই পলো হাতে পূর্ব নির্দিষ্ট দিনে দল বেঁধে মাছ ধরতে নেমে পড়ে বিলে পানিতে। এতে অংশ নেন নানা বয়সের মানুষ।

সাধারণত মাছ ধরতেই উৎসবে অংশ নেয় তারা। তবে তাদের অভিযোগ রয়েছে অনেক, চলনবিল দেশের সবচেয় বড় বিল । তবে এ বিলের জায়গা গুলো দিন দিন প্রভাবশালী দখলে চলে যাওয়ায় এবং কারেন্ট জাল,চায়না জাল দিয়ে মা মাছ শিকার করার কারনে মাছের উৎপাদন কমে যাচ্ছে । তাই দেশের বৃহত্তম বিল রক্ষায় দ্রুতই পরিকল্পিত উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন সচেতন মহল। চলনবিলের প্রকৃতি ও পরিবেশ আন্দোলনের সভাপতি মোঃ এমরান আলী রানা বলে, শহরের সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে আমরা চলনবিল কে খন্ড বি খন্ড করেছি। বিলের জায়গা দখলে নিতে অনেকেই যেন মরিয়া হয়ে উঠেছে। কিন্ত কেউ এক বারও ভাবছে না এ বিল যে আমাদের সকলেরই মুল্যবান সম্পদ।

এক সময় বিলে সারা বছর পানি থাকতো । সেখানে এমন বাউথ উৎসব সারা বছরই দেখা যেত। কিন্তু এখন আর আগের মতো বাউথ উৎসব হয় না কারন বিলে সারা বছর পানি থাকে না। তাই আমাদের সকল কে এক হয়ে চলনবিলের মানচিত্র রক্ষা করতে হবে। বন্ধ করতে হবে বিল দখল। এ ব্যাপারে তাড়াশ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) লায়লাতুল জান্নান ফেরদৌস, বলেন, উপজেলা প্রশাসন বিলের জায়গাগুলো যেন কেউ মাটি ভরাট করে দখলে নিতে না পারেন সে জন্য সব সময় সজাগ রয়েছে। আমরা বিভিন্ন সময় এ অবৈধ্য দক্ষল দারদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্টে ব্যবস্থা গ্রহন করেছি। আর মা মাছ রক্ষায় মৎস্য আইনের অমান্য করে যে জেলেরা মাছ শিকার করে তাদের বিরুদ্ধেও আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করেছি এবং এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

© All rights reserved © 2017 Dailyajkersirajgonj.com

Desing & Developed BY লিমন কবির