রবিবার l ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ l ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ l২০শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি
কাজিপুরে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় অনুমোদনহীন প্লাস্টিক পাইপ কারখানা, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে এলাকাবাসী - Daily Ajker Sirajganj
শিরোনাম:
দুই এমপি করোনায় আক্রান্ত শাহজাদপুরের বাঘাবাড়িতে একটি গ্রাম পুরুষ শূন্য সিরাজগঞ্জে পুরোহিত ও সেবাইতদের দক্ষতা বৃদ্ধি বিষয়ক কর্মশালার উদ্বোধন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় আগামি ৬ ফেব্রুয়ারি পযর্ন্ত বন্ধ ফেরদৌস ওয়াহিদ রুশো’র মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ রায়গঞ্জের তীব্র শীতে ডিমের দোকানে উপচে পড়া ভিড় রায়গঞ্জে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের বিশেষ কার্যক্রম উদ্বোধন বেলকুচিতে অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন কাউন্সিলর আলম প্রামাণিক রায়গঞ্জে সাংবাদিক পুত্র সুব্রত কুমার পেলেন চীনের এক্সিলেন্ট স্টুডেন্ট অ্যাওয়ার্ড বেলকুচিতে ডেসওয়া ট্রাস্টের কমিটি গঠন

কাজিপুরে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় অনুমোদনহীন প্লাস্টিক পাইপ কারখানা, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে এলাকাবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক :
কাজিপুর উপজেলার চালিতাডাঙ্গা ইউনিয়নের ঘনবসতিপূর্ণ হাটশিরা বাজার সংলগ্ন আবাসিক এলাকায় অনুমোদনহীন প্লাস্টিক কারখানায় তৈরি হচ্ছে নিম্নমানের পিভিসি পাইপ। কাঁচামাল হিসেবে তারা ব্যবহার করছে স্থানীয় বাজারের ভাঙ্গারি দোকান থেকে সংগ্রহ করা প্লাস্টিকের বজ্র। এতে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে স্থানীয় কয়েক হাজার গ্রামবাসী। সরজমিনে জানা যায়, কৃষক বন্ধু পিভিসি পাইপ ইন্ড্রাসটিজ নামে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ট্রেড লাইসেন্স সংগ্রহ করে স্থানীয় হাটশিরা গ্রামের বাসিন্দা সাইফুলের পুত্র শাহিন আলম এ কারখানা পরিচালনা করছেন। প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ হাজার ফুট পাইপ তৈরি হয় এই কারখানা থেকে। প্রস্তুতকৃত বিভিন্ন মাপের পিভিসি এবং ইউপিভিসি পাইপ বগুড়া, নাটোর ও রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিপণন করা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, ধূলা বালি ও প্লাস্টিকের পাউডারে শ্বাসকষ্ট জনিত রোগের প্রকোপ বেড়েছে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা না থাকায় যে কোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এ বিষয়ে কারখানা মালিক শাহিন আলম স্থানীয় পর্যায়ে এ ধরনের কারখানা চালাতে সরকারি কোনো সংস্থার অনুমোদন প্রয়োজন নেই বলে দাবি করেন। স্থানীয় শিক্ষক আমিনুল ইসলাম জানান, আবাসিক ও ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় এধরনের উন্মুক্ত কারখানা পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকির। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোমেনা পারভীন পারুল জানান, প্লাস্টিকের কণা মিশ্রিত ধূলো, ময়লা থেকে চর্মরোগ, শ্বাসকষ্টসহ পাকস্থলী আক্রান্ত হতে পারে। এ বিষয়ে কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হাসান সিদ্দিকী বলেন, বিষয়টি জেনেছি। নিয়মের কোন ব্যত্যয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

© All rights reserved © 2017 Dailyajkersirajgonj.com

Desing & Developed BY লিমন কবির